পর্ব -১

সৌভিক রায় (কলকাতা) : আলফ্রেড নোবেল আবিষ্কার করলেন ডিনামাইট ! ভাবলেন কয়েক মাইল এগিয়ে যাবে সভ্যতা , সভ্যতা তো এগোলোই ; সাথে সাথে ধ্বংসাত্মক হয়ে উঠলো মানুষও l কালের নিয়মে পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন নোবেল, কিন্তু থেকে গেলো তাঁর পদবীটি !

২১ শে অক্টোবর ১৮৩৩ সাল সুইডেনের স্টকহোমে জন্ম হয়েছিল আলফ্রেড নোবেলের, তিনি তাঁর জীবদ্দশায় অনেক গুলো উইল করেছিলেন। সর্বশেষ উইলটি লেখা হয়েছিল তাঁর মৃত্যুর মাত্র এক বছর আগে , ২৭ শে নভেম্বর ১৮৯৫ সালে প্যারিসে অবস্থিত সুইডিশ-নরওয়ে ক্লাবে। জীবনের শেষ উইলে তিনি উল্লেখ করেন যে, তাঁর উপার্জিত সমস্ত সম্পদ পুরস্কার হিসেবে প্রতি বছর প্রদান করা হবে পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, চিকিৎসা, বিশ্ব শান্তি ও সাহিত্য প্রভৃতি ক্ষেত্রের বৃহত্তর বিশ্বমানবতার জন্য কাজ করা কৃতি মানুষদের । ২৬ শে এপ্রিল ১৮৯৭ সালে এই দলিল অনুমোদন করা হয় , তার আগে পর্যন্ত এই উইলের বাস্তবভিত্তি এবং বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে সন্দেহ থাকার কারণে নরওয়ে থেকে এই উইল অনুমোদন করা হয় নি।

তাঁর উইলের সমন্বয়কারী রগনার সোলম্যান ও রুডলফ লিলজেকুইস্ট নোবেল ফাউন্ডেশন তৈরি করেন, যাদের প্রধান কাজ নোবেলের সম্পদের রক্ষণাবেক্ষণ ও নোবেল পুরস্কার প্রদান করা। ১৮৯৭ সালে নোবেলের উইল অনুমোদন হওয়ার সাথে সাথেই নোবেল পুরস্কার প্রদানের জন্য নরওয়ে একটি নোবেল কমিটি তৈরি করে । তার পর পরই নোবেল পুরস্কার প্রদান করার জন্য অন্যান্য সংস্থাগুলো প্রতিষ্ঠিত হতে থাকে ।

ওই বছরই যথাক্রমে ৭ ই জুন ক্যারোলিংস্কা ইনিস্টিটিউট, ৯ ই জুন সুইডিশ একাডেমী এবং ১১ই জুন রাজকীয় সুয়েডীয় বিজ্ঞান একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয় । কিভাবে ,কাকে, কি কি করলে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হবে তার একটি বিধি প্রস্তুত করা হয় এবং ১৯০০ সালে নোবেল ফাউন্ডেশন নতুনভাবে একটি নিয়ম বিধি তৈরি করে । ১৯০৫ সালে সুইডেন ও নরওয়ের মধ্যে নোবেল সংক্রান্ত সম্পর্ক শেষ হয়ে যায়। তার পর থেকেই নরওয়ের নোবেল কমিটি কেবল শান্তিতে নোবেল পুরস্কার এবং সুইডেনের প্রতিষ্ঠানগুলো অন্যান্য বিভাগের পুরস্কার প্রদানের দায়িত্ব পায়। ১৭৮৬ সালে একটি স্বাধীন সংস্কৃতি প্রতিষ্ঠান হিসেবে দ্য সুইডিশ একাডেমির সৃষ্টি হয়েছিল। এই একাডেমি ১৯০১ সাল থেকে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার দিয়ে আসছে।

(ক্রমশ)