দুশ্চিন্তার মেঘ সরিয়ে হাসি ফেরাচ্ছে ‘গরম ভাতের গল্প’

শেয়ার করুন

দেশজুড়ে করোনার প্রকোপ প্রবল ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।মারণ ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ তে বেসামাল এ রাজ্য।একদিকে যখন জোর কদমে চলছিল ভোট প্রচার অন্যদিকে সাধারণ মানুষ প্রমাদ গুনছিলেন দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে।হলোও তাই।তাই ফের লকডাউনের পথে হাঁটলো রাজ্য।করোনার সংক্রমণ কমানো গেলেও মানুষের রুটিরুজির প্রশ্ন থেকে যাচ্ছিল।আর তা ছাড়া সমাজের নিচুস্তরের যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরোয় তাদের কি হবে?

এই লকডাউনে কী করে পেট চলবে ফুটপাত বাসীদের?আবার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লে কী করবেন তাঁরা?এই প্রশ্নগুলোকে সঙ্গী করে পথে নেমে পড়েছিলেন এক দল তরুণ যুবক যুবতী।তাঁরা সিদ্ধান্ত নেন,তারা পাশে দাঁড়াবেন অসহায় মানুষের।নিরন্ন মানুষের মুখে তুলে দেবেন অন্ন।তাই ঠিক হয় প্রত্যেক দিন গড়িয়াহাট ব্রিজের নীচে ১৫০ জন ফুটবাসীর হাতে খাবার তুলে দেবেন।তাদের এই উদ্যোগের নাম দিয়েছেন ‘গরম ভাতের গল্প’।

পাশাপাশি এই কঠিন সময়ে মানুষের প্রয়োজনে যাতে বাড়ি বসেই ওষুধ এবং অক্সিজেন পেয়ে যান, সেই প্রয়াশও চালাচ্ছেন অরুনিমা মহাপাত্র, সুতনু চক্রবর্তী,সিদ্ধার্থ চক্রবর্তী,দীপায়ন প্রামানিক,প্রবাল ঘোষ, জিষ্ণু সেনগুপ্ত এবং অনরণ্য বসু মিলে।

এরা প্রত্যেকেই কলেজ-পড়ুয়া, কিংবা সদ্য কলেজ পাশ করা।এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করতে প্রথমে নিজের পকেট থেকেই খরচ শুরু করেছিলেন।তারপর নেটমাধ্যমে তাঁদের এই কাজের ছবি দেখে বহু মানুষ সাধ্যমতো এগিয়ে এসেছেন।দলের এক সদস্য অনরণ্য, ‘‘আমরা ভাবতে পারিনি, এত জন আমাদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসবেন। এই বিপুল আর্থিক সাহায্য পেয়ে আমরা একটা বড়সড় ফান্ড তৈরি করতে পেরেছি ।

ফুটপাথবাসীদের খাবার দেওয়া ছাড়াও বাড়ি বাড়ি ওষুধ এবং অক্সিজেন জোগান দেওয়ার চেষ্টা করছেন ওঁরা সকলে,যেমন-শান্তদেব দত্ত,তনুময় নস্কর,লাবণী মুখার্জি,সুতনু চক্রবর্তী,সিদ্ধার্থ চক্রবর্তী,দেবাংশু মুখার্জী,ওয়াসিম আখতার,বিপ্র বিশ্বাস,নেহা সাহা। তরুণ প্রজন্মের এই প্রয়াস নেটমাধ্যমে বিপুল প্রচার পেয়েছে ইতিমধ্যে। স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়, সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের মতো তারকাদের নজরে আসার পর। তাঁরা প্রত্যেকেই এই উদ্যোগে আপ্লুত। এবং নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়ার পেজ-এ তাঁরা এগুলি বাকিদের কাছে তুলে ধরেছেন। তাতে আরও বেশি মানুষ জানতে পেরে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

ইতিমধ্যে গরম ভাতের গল্প এর এই মহৎ প্রয়াস ছড়িয়ে পড়েছে আলিপুরদুয়ারের ফালাকাটায়।সেখানেও প্রতিদিন চলছে ১৫০ জন মানুষের অন্ন জোগানোর কর্মকান্ড।গোটা প্রক্রিয়াটি যারা সামলাচ্ছেন তারা হলেন,সৈকত বর্মণ , শুভায়ু চক্রবর্তী , মহেশ বর্মণ,সৌসম‍্য দে , প্রতীক দাস , অরিত সাহা ,সৌগত দাস , সৌরিক সরকার ,অনিকেত দত্ত , অর্ণব দাস, সফিকুল হক,আকাশ দাশ।

এই কঠিন সময়ে এমন এক উদ্যোগ সত্যিই যেকোন প্রশংসাই কম।আমাদের Bengal95 নিউজ পরিবারের তরফে তাদের কুর্নিশ জানায় যারা এই উদ্যোগে সামিল হয়েছেন।

শেয়ার করুন

close