বার বার যে প্রশ্নে বামেরা জর্জরিত হয়েছেন তা হলো কবে যুবদের সামনে এনে লড়াইয়ের ময়দানে নামবেন?আগেও সম্ভবনা দেখা গেলেও পুরোনো রীতিতেই থেকে গিয়েছে বামেরা।২০১১ সালে ক্ষমতা হারানোর পর রক্তক্ষরণ শুরু হলেও ২০২০ সালে তা রোখা যায়নি বরং বেড়েছে।লোকসভা নির্বাচনে তথৈ বচ অবস্থা। গতকাল কলকাতার রাজপথে তরুণ প্রজন্মের ডাকে CAA-NRC বিরোধীতায় নাগরিক মিছিল। এই মিছিলে পা মেলান সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন



মিছিলের দখল ছাত্রযুবাদের হাতে থাকলেও,তাদের সাথেই পা মেলালেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্ররা।গতকালের কলেজস্ট্রিটের ওই মিছিলে এসএফআই নেত্রী ঐশী ঘোষের নেতৃত্বে নাগরিক মিছিলে দলের প্রবীণ-নবীনের মধ্যে দূরত্বটা লক্ষ করা গেল।কোথায়ও গিয়ে একটা দুরুত্ব তৈরি হয়েছে প্রবীণ আর নবীনে।যদিও বাম নেতৃত্ব এ কথা মানতে নারাজ। নেতৃত্বে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ।
এদিন সকাল থেকে কলেজ স্ট্রিট চত্বর জুড়ে ছিল উত্তেজনা।বহিরাগত তকমা দিয়ে প্রথমে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে সভা করতে দেওয়া হয়নি ঐশীকে।পরে অবশ্য কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল লাইব্রেরির গেটের বাইরে ঐশী সহ বাম নেতৃত্ব সভা করেন। সভা শেষে সেখান থেকে ‘জন-গণ-মন’ যাত্রার আয়োজন করেন বামপন্থী ছাত্রছাত্রীরা।



এদিন কলেজ স্ট্রিট ক্যাম্পাস থেকে শ্যামবাজার পর্যন্ত মিছিল হয়। সেই সময় লক্ষ করা যায় জমায়েত থেকে মাত্র কয়েক হাত দূরে দাঁড়িয়ে রয়েছেন বামফ্রন্ট চেয়াম্যান বিমান বসু, সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র, চিত্র পরিচালক তরুণ মজুমদার, অনীক দত্তরা।গতকালের বই পাড়া তখন তারুণ্যের স্লোগান এরপর ঐশীকে কেন্দ্রে রেখে মিছিল এগিয়ে গেল।মিছিলের অগ্রভাগে নবীন বামপন্থী ছাত্রছাত্রীরা পিছনে অভিজ্ঞ প্রবীণরা।



গতকাল ঐশীদের মিছিল ছিল নজিরবিহীন।ইতিমধ্যে মিছিল নিয়ে কথা শুরু হলেও রাজনৈতিক মহলের একটি অংশের মতে, এমনটাই হয় উচিৎ। তাদের মতে বামপন্থী আদর্শকে নিয়ে প্রকৃত লড়াই চালিয়ে যেতে গেলে তরুণদের হাতে দায়িত্ব তুলে দিতে হবে,আনতে হবে সামনের সারিতে।সেই সাথে অভিজ্ঞরা নেপথ্যে থেকে নবীন প্রজন্মকে পথ দেখাবেন,গতকাল বামেদের মিছিল মাইল স্টোন হয়ে থাকলো বলা চলে।এছাড়াও বাম নেতৃত্বের কানাঘুষো শোনা যাচ্ছিল দেওয়ালে পিঠ থেকেছে বামেদের।তাই তরুণ প্রজন্মকে সামনে এনে লড়াইয়ে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে বামেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here