পিনাকী চক্রবর্তী: ১২৩ তম জন্মদিনে দেশনায়ক নেতাজিকে স্মরণ গোটা দেশের। বৃহস্পতিবার নেতাজির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শ্রদ্ধা জানালেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এবং সাধারণ মানুষ ৷ এদিন নেতাজিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে নেতাজির পিতার ডায়ারির একটি পাতার প্রতিলিপি একটি টুইট করেন। ওই টুইটে মোদী লেখেন, 1897 সালের 23 জানুয়ারি জানকীনাথ বসু তাঁর ডায়েরিতে লিখেছেন দুপুরবেলা এক পুত্র সন্তানের জন্ম হল ৷

আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন



” জানকীনাথ বসুর লেখা ওই ডায়ারির পাতার প্রতিলিপির পর তার টুইটের উল্লেখের পর মোদী লেখেন, “তাঁর সেই পুত্রই একজন নির্ভীক স্বাধীনতা সংগ্রামী হন, যিনি তাঁর সমস্ত জীবন দেশের জন্য নিয়োজিত করেন ৷ তাঁর জন্মবার্ষিকীতে আমরা তাঁকে গর্বের সঙ্গে স্মরণ করি ৷এরপর একটি ভিডিও টুইট করে মোদী ঔপনিবেশিক শাসন দূর করতে নেতাজির ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন।

এদিন নেতাজিকে স্মরণ করে টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, কদম কদম বাড়ায়ে যা’ উদ্ধৃত করে তিনি লেখেন, “দেশনায়ক নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকীতে জানাই শ্রদ্ধা ও প্রণাম। ওঁর দেশপ্রেমের চেতনা আগামী প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করুক ৷”



এদিন দেশনায়ককে স্মরণ করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ‌। ওই টুইটে দেশের জন্য নেতাজির ভূমিকার কথাও উল্লেখ করেন কোবিন্দ। এদিন নেতাজিকে স্মরন করে টুইট করেন নেতাজির প্রপৌত্র চন্দ্র কুমার বসুও। ওই টুইটে নেতাজির জন্মদিনকে দেশপ্রেম দিবস হিসাবে ঘোষণা করার দাবিও জানান তিনি। বিজেপির তরফেও এদিন নেতাজিকে স্মরন করে টুইট করা হয়।

এছাড়াও সাধারণ মানুষ ও নেতাজিকে স্মরণ করেন। নেতাজিকে স্মরন করে বিভিন্ন উৎসব পালন করা হয় পশ্চিমবঙ্গ সহ গোটা দেশে। নেতাজির জন্মবার্ষিকীতে রাজ্যজুড়ে সরকারের উদ্যোগে সুভাষ উৎসব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here